Ultimate magazine theme for WordPress.

রাজবাড়ীতে ঈদকে সামনে রেখে সেমাই কারখানা গুলো ব্যস্ত সময় পার করছেন

রাজবাড়ী প্রতিনিধি


যেকোন উৎসবে অতিথি আপ্যায়নে একটি গুরুত্বপূর্ণ মিষ্টি খাদ্য হিসেবে সুনাম রয়েছে সেমাইয়ের। চাহিদা থাকায় প্রতি বছরই রাজবাড়ীতে ঈদকে সামনে রেখে সেমাই কারখানা গুলো তাদের উৎপাদন আরো বৃদ্ধি করেন।

এবছরও কারখানা গুলো তাদের লোকবল বাড়িয়ে স্বাস্থ্যবিধি ও স্বাস্থ্যম্মত উপায়ে কোন ধরনের কেমিক্যাল ও রং না মিশিয়ে সেমাই উৎপাদন করছেন। কোভিডের কারনে রমজানের আগে উৎপাদন কিছুটা কম হলেও ঈদকে কেন্দ্র করে তাদের সেমাই উৎপাদন বেড়েছে কয়েকগুন। রাজবাড়ীর চাহিদা মিটিয়ে এ সেমাই গুলো বিভিন্ন জেলাতে রপ্তানি করছেন ব্যাবসায়ীরা।

রাজবাড়ী সদও উপজেলার রামকান্তপুরের বিসিক শিল্প নগরীতে চারটি সেমাই উৎপাদন কারখানা রয়েছে। এর মধ্যে দ্বীন ফ্লাওয়ার মিলস ’এর মালিক কামিরুল ইসলাম তিনি তাদের কারখানায় নিজস্ব মিলে উৎপাদিত ময়দা দিয়ে স্বাস্থ্য সম্মত ও সব ধরনের স্বাস্থ্যবিধি মেনে ডায়মন্ড ও ফাইভ স্টার নামে দুটি ভিন্ন নামে সেমাই উৎপান করছেন। এখানে উৎপাদিত সেমাইয়ে কোন ধরনের কেমিক্যাল ও রং মিশানো হয়না। প্রথমে মেশিনে ময়দার সাথে গরম পানি মিশিয়ে কাঁচা সেমাই তৈরি করা হয়। এর পর কড়া রোদ্রে শকিয়ে আগুনের চুলাতে ভাজা হয়। এতে সেমাই গুলো বাদামি লালচে রং ধারন করে। এ সেমাই গুলোতে কোন অস্বাস্থ্যকর রং ব্যবহার করার প্রয়োজন পরেনা। পরে করা হয় মোড়কীকরন।তাই এর চাহিদাও রয়েছে নিজ জেলা সহ অন্যান্য জেলাগুলোতে। এ সেমাই কারখানা গুলোতে বর্তমানে ঈদকে সামনে রেখে উৎপাদন কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন সকাল থেকে রাত পর্যন্ত। উৎপাদন বাড়াতে বাড়িয়েছেন লোকবল। উৎপাদিত সেমাই রাজবাড়ী সহ বিভিন্ন জেলাতে বিক্রি করছেন। এতে কোভিড কালীন সময়ের তাদের উৎপাদনে তেমন একটা ভাটা পরেনি।কারখানায় কর্মচারিদেও নিয়মিত পাওনা পরিশোধ করছেন। এতে সেমাউ তৈরীর সাথে জড়িত কর্মচারীরা তাদের পরিবার পরিজন নিয়ে ভালো ভাবেই চলছেন। কাজী ফুডস,সোহান ফুডস ও শাওন ইন্ডষ্ট্রিজ এই কারখানা গুলো সেমাই উৎপাদ করেন রাজবাড়ীতে।

সেমাই কারিগরেরা বলেন ,তারা বর্তমানে স্বাস্থ্যবিধি উপকরন ব্যবহার করে ও স্বাস্থ্য সম্মত উপায়ে সেমাই তৈরী করছেন। এখানে উৎপাদিত সেমাইতে কোন রং বা কেমিক্যাল মিশানো হয়না। করোনার মধ্যেও মালিক পক্ষ তাদের পারিশ্রমিক ভালোভাবে মিটিয়ে দেন নিয়মিত।এখানে কাজ করে তারা ভালো আছেন পরিবার নিয়ে।

সেমাই উৎপাদন কারী প্রতিষ্ঠান দ্বীন ফুড প্রডাক্টস’ এর মালিক কামিরুল ইসলাম বলেন,তারা এই করোনার মধ্যেও স্বাস্থ্যবিধি ও স্বাস্থ্য সম্মত উপায়ে সেমই তৈরী করছেন। ঈদকে সামনে রেখে সেমাইয়ের উৎপাদন আরো বেড়েছে। রং ও কেমিক্যাল ব্যবহার করা হয়না বলে এর চাহিদা রয়েছে বাজারে। চাহিদার কারনে উৎপাদিত সেমাই রাজবাড়ী সহ বিভিন্ন জেলাতে রপ্তানি করছেন। শ্রমিকদেওর স্বাস্থ্য সম্মত ভাবে সেমাই উৎপাদন করতে পরামর্শ দিয়ে থাকেন।

জিয়াউল হক জিয়া-শিল্প নগরী কর্মকর্তা রাজবাড়ী ,তিনি বলেন, এই শিল্প নগরীতে চারটি সেমাই কারখানা রয়েছে। ঈদকে সামনে রেখে কারখানা মালিকেরা সেমাই উৎপাদন অব্যাহত রেখেছেন। কোভিডের মধ্যেও স্বাস্থ্যবিধি মেনে এখানে সেমাই তৈরী করছেন । এতে তারা ভালো মুনাফা লাভ করতে পারবেন বলে আশা করেন। বিসিকের পক্ষ থেকে সাবক্ষনিক পর্যবেক্ষন করা হয় স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলতে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.