Ultimate magazine theme for WordPress.

নারায়নগঞ্জের রুপগঞ্জে অগ্নিকান্ড দিনাজপুর চিরিরবন্দরের মোরসালিন ইসলামের বাড়ী শোকের মাতম চলছে

(সুলতান মাহমুদ চৌধুরী) দিনাজপুর প্রতিনিধি


মা এবার কোরবানী ঈদত বাড়ী জাইম , তোর জন্যে শাড়ী কিনে নিইম, বইনের জন্য শাড়ী কিনিছু “ঘটনার ৩দিন আগত মোক বাজান ফোন দিছিল। মক কইছে মা মুই বইনের জন্যি সেমাই- চিনি কিনিছু। মুই ঈদত বাড়ী গেইলে বইনের শ্বশুরবাড়ীত যাই সেমাই-চিনি দিতে আসিম। তুই চিন্তা করিস না।”

আজ শনিবার দুপুরে দিনাজপুরের চিরিরবন্দর উপজেলার আব্দুলপুর ইউনিয়নের দক্ষিণ সুকদেবপুর গ্রামে গিয়ে নারায়নগঞ্জের রূপগঞ্জের হাশেম ফুড বেভারেজ কোম্পানীকে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডের নিহত মোরসালিন ইসলামের বাড়ীতে শোকের মাতম চলছে । এক মাত্র ছেলের মৃত্যুর খবর পাওয়ার পর বৃদ্ধা বাবা মা বারবার র্মুছা হচ্ছে ।

এই ভাবে বিলাপ করছিলেন নারায়নগঞ্জের রূপগঞ্জের হাশেম ফুড বেভারেজ কোম্পানীকে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডের নিহত মোরসালিন ইসলামের মা মোকসেদা খাতুন। নিহত মোরসালিন ইসলাম দিনাজপুরের চিরিরবন্দর উপজেলার আব্দুলপুর ইউনিয়নের দক্ষিণ সুকদেবপুর গ্রামের আনিসুর রহমান ও মোকসেদা খাতুনের ছেলে।

১ ভাই ও ১ বোনের মধ্যে মোরসালিন বড়। ৫ মাস পূর্বে একই উপজেলার গরীবের বাজারে বোনের বিয়ে হয়।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ঘটনা ঘটে। এই ঘটনায় এ পর্যন্ত ৫২ জনের মৃত্যু হয়েছে। সেই মৃত্যুর তালিকায় নাম রয়েছে দিনাজপুর জেলার চিরিরবন্দর উপজেলার মোরসালিন ইসলাম (২২)।

বাবা আনিসুর রহমান বলেন, “ঘটনার আগত মোর মোবাইলত সাড়ে ৪হাজার টেহা পাঠাইছিল। টেহা পাঠাই মোক ফোন দিক কইছে- বাবা বইনের বিয়ার সময় মুই বইটারে কিছুই দিবার পারু নাই। তোমার মোবাইলত মুই সাড়ে ৪ হাজার টেহা পাঠাইনু। ওই টেহা দিয়া বইনের জন্যি কাপড় কিনি দিস। এটাই বাজানের সাথত মোর শেষ কথা হইছে।

তিনি আরও বলেন, ঘটনার দিন বিকালত মোক মোর শালা জুয়েল ফোন করি ঘটনা জানাই। ছেলে খান ৩ তলা ছাদ থাকি লাফ দিছে। রাইত ছেলে খান মইরে গেইল। মোর বুক খান খালি হই গেইল। মোর মতন বহু বাবা-মার বুক খালি হই গেইল। কেনে ওরা গেইটত তালা মারিল। মুই কারখানার মালিকসহ এই ঘটনার জড়িত সকলের শাস্তি চাও।

Leave A Reply

Your email address will not be published.