Ultimate magazine theme for WordPress.

দিনাজপুর সদর লকডাউনের পঞ্চম দিনে শহরের বিভিন্ন স্থানে বাঁশ দিয়ে ব্যারিকেট

(সুলতান মাহমুদ) দিনাজপুর প্রতিনিধি


দিনাজপুর সদর উপজেলা লকডাউনের মধ্যেও করোনা ভাইরাসের আক্রান্তের সংখ্যা ও মৃত্যুর সংখ্যা আশংকাজনক হারে বৃদ্ধি পাওয়ার দিনাজপুরের প্রবেশদ্বার ও শহরের লিংক রোডে বাঁশ দিয়ে ব্যারিকেড জনসাধারনের চলাচলে বাধা প্রদান করছে স্থানীয় প্রশাসন ।

আজ শনিবার লকডাউনের পঞ্চম দিনেও সদরে করোনা আক্রান্ত ও মৃত্যুর হার প্রতিদিনই বৃদ্ধি পাচ্ছে । গত ২৪ ঘন্টায় জেলায় নতুন করে ৬৫ জন করোনা সনাক্ত হয়েছে । তার মধ্যে জেলা সদরেই করোনা আক্রান্ত হয়েছে ৫৫ জন । যা সদরে করোনা শনাক্তের হার ৮৪.৬১ শতাংশ । করোনা আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ৩ জনের মৃত্যু হয়েছে ।

জেলা সদরের প্রবেশ দ্বারগুলিতে পুলিশিং চেক পোষ্ট বসানো হলেও তা উপেক্ষা করে অটোরিকশা , মোটর সাইকেল , বাই,সাইকেল ট্রাক্টর , ট্রাক যোগে মানুষ জেলা সদরের প্রবেশ করছে । শহরের কিছু দোকানপাট বন্ধ থাকলেও প্রতিটি দোকানের সামনে দোকানদাররা বসে থাকে ক্রেতা আসলেই দোকানের ভিতরে প্রবেশ করিয়ে ব্যবসা পরিচালনা করছে । অনেকটা চোর পুলিশের মত খেলা খেলছে । শহরের প্রবেশদ্বারে পুলিশিং চেকপোষ্ট ও বাঁেশর ব্যাকিরেট উপেক্ষা করেও বিভিন্ন অজুহাত দেখিয়ে জেলা সদরের প্রবেশ করছে জনসাধারন । জনসাধারন সামাজিক দুরুত্ব বা স্বাস্থ্য বিধি না মানায় করেনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চরেছে ।

জেলা প্রশাকের নির্দেশনায় পুলিশ , র‌্যাব , আনসার সদস্যরা শহরের বিভিন্ন পয়েন্ডে অবস্থান নিয়েও জন¯্রােত ঠেকাতে পারেনি । মাঝে মধ্যে জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেটের টহল অব্যাহত থাকলেও প্রয়োজনের তুলনায় অনেক কম । তবে জেলা কোন জন প্রতিনিধিরা কিš‘র লকডাউন বা¯তবায়নের ক্ষেত্রে তেমন কোন তৎপরতা ছিলনা ।

শহরের প্রবেশদ্বর দিয়ে শত শত অটো রিকশা , মোটর সাইকেল ম,বাই সাইকেল ভ্যান , ট্রাক , পিক আপ ভ্যানে করে মানুষ জেলা সদরে প্রবেশ করছে আর মানুষ প্রয়োজনে শহরের বাহিরে প্রবেশ করছে । তবে শহরের বেশির ভাগ দোকানপাট , মপিংমল , রেন্টুরেন্ড মার্কেট বন্ধ ছিল ।

জেলা প্রশাসক ও জেলা করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি খালেদ মোহাম্মদ জাকী স্বাক্ষরিত ১৩ টি শর্ত জারি করে গণবিজ্ঞপ্তি জারি করেন । গত মঙ্গলবার থেকে ৭ দিনের লকডাউন ঘোষনা করেন জেলা প্রশাসক , শনিবার লকডাউনের পঞ্চম দিন ছিল ।

Leave A Reply

Your email address will not be published.