Ultimate magazine theme for WordPress.

দিনাজপুর প্রেস ক্লাবের সভাপতি ও দৈনিক তিস্তা‘র সম্পাদক মিজানুর রহমান লুলুর ইন্তেকাল, দাফন সম্পন্ন

দিনাজপুর প্রতিনিধি


দিনাজপুর থেকে প্রকাশিত বহুল প্রচারিত দৈনিক তিস্তার সম্পাদক আলহাজ্ব মোঃ মিজানুর রহমান লুলু ঢাকায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেছেন। ( ইন্না—–রাজেউন) মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল (৭৪) বছর।

আজ রবিবার ৩ টার দিকে দিনাজপুর প্রেস ক্লাবের সামনের সড়কে নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয় । জানাজায় দিনাজপুর প্রেস ক্লাবের সকল সদস্য ও আত্মীয় স্বজন অংশ গ্রহন করেন । আর আগে ইয়ার এ্যাম্বুলেন্সে যোগে তার লাশের কফিন গোর এ শহীদ বড় ময়দানে আনা হয় । পরে লাশবাহী গাড়ীতে করে দিনাজপুর প্রেস ক্লাবের আনা হয় । প্রেস ক্লাবের পক্ষ থেকে এবং সাংবাদিক ইউনিয়নের পক্ষ তার লাশের কফিনে শেষ শ্রদ্ধা স্বরুপ পুস্প অর্পন করা হয় ।

শনিবার দিবাগত রাত ৩ টায় ঢাকা এভার কেয়ার হাসাপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু বরণ করনে।

দিনাজপুর সাংবাদিক ইউনিয়ননের (জেইউডি) সভাপতি দৈনিক তিস্তার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক আলহাজ্ব মোঃ ওয়াহেদুল আলম আটিষ্ট জানান, গত ১৯ এপ্রিল আলহাজ্ব মোঃ মিজানুর রহমান লুলু কনোরায় আক্রান্ত হলে দিনাজপুরের এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসাপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে থেকে করোনা জয় করে সুস্থ্য হয়ে তিনি শহরের বালুবাড়ী বাসায় চলে আসেন। এরপর আবার শ্বাস কষ্ট দেখা দিলে তাকে দিনাজপুর জিয়াহাট ফাউন্ডেশন এন্ড রিসাচ হাসাপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে ১ মে এয়ার এ্যাম্বুলেন্সে যোগে ঢাকায় নিয়ে গিয়ে এভার কেয়ার হাসাপাতালে ভর্তি করা হয় । পরে সুস্থ্য হয়ে উঠলে ১৬ মে ছেলেরসামস্ শাহরিয়ারের ঢাকার উত্তরায় ৩ নং সেক্টরের ৮ নং রোর্ডের ৮ বাসা নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানেই তিনি অবস্থান করছিলেন। এরপর আবারো অসুস্থ্য হয়ে পড়লে ৩০ মে পুনরায় তাকে এভার কেয়ার হাসাপাতালে ভর্তি করা হয়। ৪ জুন সুস্থ্য হয়ে আবারো ছেলের বাসায় ফিরেন। আবার ১১ জুন শ্বাঃস কষ্ট জনিত কারণে এভার কেয়ার হাসাপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তাকে ব্রেথিং লাইফ সাপোর্ট(কৃত্রিম ভাবে শ্বাস প্রশ্বাস গ্রহণ করার যন্ত্র)দিতে রাখা হয়। ১২ জুন শনিবার দিবাগত রাত ৩ টায় তিনি ইন্তেকাল করেন।

প্রবীন এই সম্পাদক দিনাজপুর সদর উপজেলার ৫ নং শশরা ইউনিয়নের পাঁচবাড়ী গ্রামে একটি সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে ১৯৪৭ সালে জন্ম গ্রহণ করেন। তার পিতা মরহুম এ্যাড. শামসুদ্দিন আহম্মেদ দিনাজপুর সদর উপজেলার প্রথম গ্রাজুয়েট ছিলেন।

সম্পাদক মিজানুর রহমান লুলু দিনাজপুরের সুরেন্দ্রনাথ কলেজে পড়ালেখা শেষে করাচি থেকে এমএ পাশ করেন। পরে তিনি “ল” পাশ করে নিজেকে তিনি আইন পেশার সঙ্গে সম্পৃত্ত করেন। তিনি এপিপিও ছিলেন। তিনি দিনাজপুর জেলা আইনজীবী সমিতির সদস্য, দিনাজপুর সাংবাদিক ইউনিয়নের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক দিনাজপুর আইন কলেজের পরিচালনা পর্ষদের সদস্য, নাজপুর আইন কলেজের পরিচালনা পর্ষদের সদস্য, দিনাজপুর প্রেসক্লাবের একাধিক বার সভাপতি ছিলেন। পরে প্রেস ক্লাব বিভক্ত হলে বিভক্ত দিনাজপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি হিসাবে মৃত্যুর আগ পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন। তার সম্পাদনায় প্রকাশিত দৈনিক তিস্তার বয়স ৪০ বছর। এছাড়াও তিনি দিনাজপুর চেম্বার চেম্বার অব কমার্সের সাবেক নির্বাহি সদস্য, রেডক্রিসেন্ট সোসাইটির সাবেক নির্বাহী সদস্য,জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট, নবরুপীর সাবেক সেক্রেটারি , দিনাজপুর ইনষ্টিটিউটের সদস্য ছিলেন।

মৃত্যুর আগে তিনি স্ত্রী, ৩ ছেলে ও এক মেয়েসহ অসংখ্য গুনগ্রাহী রেখে গেছেন।

মরহুমের মরদেহ দিনাজপুরে এসে পৌছানোর পর দিনাজপুর আইনজীবী সমিতিতে জানাযা আইন কলেজ মোড়স্থ জামে মসজিদের সামনে দিনাজপুর প্রেস ক্লাবের সামনে , দিনাজপুর ইনষ্টিটিউট মাঠে ও সর্বশেণ তার গ্রামের বাড়ীতে আরোও একটি জানাজা অনুষ্ঠিত হয় ।

নামজের পর গ্রামের বাড়ী পাঁচবাড়ী দ্বিমুখী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জানাযা শেষে বাদ আছর পারিবারিক গোরস্থানে দাফন সম্পন্ন করা হয়।

Leave A Reply

Your email address will not be published.